কিশোরগঞ্জের পবিত্র মাটিতে আমার পিতার জন্ম, এই মাটি আমার শেষ ঠিকানা: এমপি সৈয়দা লিপি


admin প্রকাশের সময় : জুন ২, ২০২৩, ১০:২৯ অপরাহ্ন /
কিশোরগঞ্জের পবিত্র মাটিতে আমার পিতার জন্ম, এই মাটি আমার শেষ ঠিকানা: এমপি সৈয়দা লিপি

শাহজাহান সাজু (নিজস্ব) প্রতিবেদক:

“পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলী টানেলের ঈর্ষণীয় সাফল্যের চূড়ায় বাংলাদেশ জনতার নেত্রী শেখ হাসিনা” এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে শুক্রবার (২ জুন) বিকাল ৩ ঘটিকায় কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার লতিবাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দা জাকিয়া নুর লিপি বলেন বর্তমান সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকায় ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করে পুনরায প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। তিনি বলেন বিগত নির্বাচনে আপনারা নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলেই আমার নির্বাচনী এলাকাসহ সমগ্র বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের ঈর্ষণীয় পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। আপনারা নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলেই ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পেয়েছেন, শতভাগ বয়স্ক ভাতা পেয়েছেন। আমার পিতা শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও ও আমার বড় ভাই সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের অসমাপ্ত কাজগুলি সমাপ্ত করার জন্য আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে আপনাদের মাঝে এসেছিলাম।

এই কিশোরগঞ্জের পবিত্র মাটিতে আমার পূর্বপুরুষের জন্ম, এই মাটিতে আমার পিতা সৈয়দ নজরুল ইসলামের জন্ম, আমার ভাই সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের জন্ম, এই মাটি আমার শেষ ঠিকানা।

সংসদ সদস্য সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি বলেছেন, বিএনপি’র জন্ম হয়েছে ক্যান্টনমেন্টের আঁতুড় ঘরে।একজন নাকে ক্ষাত দিয়ে বিদেশে অবস্থান করছেন৷বিদেশে তিনি আরাম আয়েসে আছেন, এই হল বিএনপি। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন হয় না। উন্নয়ন হয় তাদের নিজেদের৷হয় খুকু আর খাম্বা। আর অত্যাচার-নির্যাতন তো আছেই৷

তা বলে শেষ করা যাবে না ৷ কিন্তু আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন তিনি জনগণের কথা ভাবেন ৷নেত্রী উন্নয়নের কথা ভাবেন, তিনি মেট্রোরেল, পদ্মা সেতু, ঘরে ঘরে বিদ্যুতের ব্যবস্থা, শিক্ষা ব্যবস্থা, বিধবা ভাতা চালু করেছেন , দুস্থ ভাতা চালু করেছেন, মুক্তিযুদ্ধাদের জন্য সম্মানী ভাতার ব্যবস্থা করেছেন তাদের আবাসনের ব্যবস্থা করেছেন, যাদের ঘর নাই তাদের জন্য আবাসন প্রকল্পের ব্যবস্থা করেছেন, আর স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়নের জন্য হাজার হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেছেন ৷

জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও নির্বাচিত করে নৌকাকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে হলে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার জন্য আমার পিতা ও আমার ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করা করতে আপনাদের কাছে আমি এসেছি ৷

এ সময় তিনি ব্যাপক জনস্রোত দেখে আবেগ আপ্লূত হয়ে আরোও বলেন। আমি আপনাদের ভালোবাসা পেয়েছি, আমাকে চলে যেতে বলবেন না,আমি আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে সারা জীবন আমার পিতা ও ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজগুলি সমাপ্ত করার জন্য আপনাদের পাশে থাকব।

লতিবাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শরীফ আহমেদ খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এস এম তাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় লতিবাবাদ বিআরটিসি বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন মাঠে আয়োজিত উক্ত জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতিও ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড. জিল্লুর রহমান তিনি বলেন বাংলাদেশে চারটি পরিবার আছে, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের পরিবার, তাজ উদ্দিন আহমেদের পরিবার, ক্যাপ্টেন মনসুর আলীর পরিবার, কামরুজ্জামান এর পরিবার। এই চার পরিবারের সদস্যদের বাইরে জননেত্রী শেখ হাসিনা কাউকে এমপি পদে মনোনয়ন দেবেন না।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ পারভেজ মিয়া, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান, জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক বাদল রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম জাহান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার এবি ছিদ্দিক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য সৈয়দ আশাকুল ইসলাম নাটু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শরীফুল গনি ঢালী লিমন, লতিবাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক, রশিদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জুয়েল, লতিবাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নেতৃবৃন্দ বলেন কিশোরগঞ্জ ১ (সদর-হোসেনপুর) আসনের অসমাপ্ত কাজ গুলি সমাপ্ত করতে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় এমপি হিসাবে ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপিকেই আমরা পেতে চাই। লতিবাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি কে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন। হাজার হাজার নেতাকর্মী এমপি হিসাবে আবারও লিপি আপাকে পেতে চাই, লিপি আপাকে এমপি হিসাবে পেতে চাই বলে ধ্বনিতে ধ্বনিতে বিআরটিসি বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন লতিবাবাদ মাঠ যেন এক উৎসবের আমেজে পরিণত করে।